Oops! It appears that you have disabled your Javascript. In order for you to see this page as it is meant to appear, we ask that you please re-enable your Javascript!.

মৌখিক পরীক্ষা ইংরেজিতে: নিবন্ধন পরীক্ষার্থীদের ভিন্ন অভিজ্ঞতা | ejobscircular24

Government - Non Government job circular and news of Bangladesh

মৌখিক পরীক্ষা ইংরেজিতে: নিবন্ধন পরীক্ষার্থীদের ভিন্ন অভিজ্ঞতা

এনটিআরসিএ কর্তৃক মঙ্গলবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) ইরেজি বিষয়ে ১৩ম নিবন্ধনের মৌখিক পরীক্ষায় অংশ নেয়া প্রার্থীরা জানিয়েছেন তাদের নতুন অভিজ্ঞতা কথা।

রাজধানীর ইস্কাটন গার্ডেন রোডের ৩৭/৩/এ বাড়িতে অবস্থিত রেডক্রিসেন্ট বোরাক টাওয়ারে এনটিআরসিএ এর নতুন অফিসে গত রোববার থেকে শুরু হয়েছে এ বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষা।

আজকের প্রার্থীরা সকলেই ছিলেন ইংরেজি বিভাগের শিক্ষার্থী। তারা কলেজ ও স্কুল পর্যায়ে নিয়োগ প্রার্থী ছিলেন। সকালের দিকে স্কুল পর্যায়ে ও বেলা ১২ টার পর কলেজে নিয়োগ প্রার্থীদের মৌখিক পরীক্ষা নেওয়া হয়। সকাল ১০ টা থেকে শুরু হওয়া এ পরীক্ষায় ৮টি বোর্ডের অধীনে অংশগ্রহণ করেন মোট ৪০০ জন প্রার্থী।

দৈনিকশিক্ষা প্রতিদিনের মত আজকেও বাংলাদেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে আসা নিয়োগ প্রত্যাশী প্রার্থীদের সাক্ষাৎকার নিয়েছে। এসব প্রার্থীরা মৌখিক পরীক্ষা বোর্ডে তাদের নিজেদের বিভিন্ন অভিজ্ঞতার কথা জানিয়েছেন। সাক্ষাতকার নিয়েছেন দৈনিকশিক্ষার প্রতিবেদক সাঈদ হোসেন।

ময়মনসিংহ আনন্দমোহন কলেজ থেকে আসা মাসুম নামের একজন প্রার্থী জানিয়েছেন তার অভিজ্ঞতা। তিনি বলেন, ইংরেজির শিক্ষার্থী হিসেবে আমার সাথে সব কথা তারা ইংরেজিতে বলেছেন। কক্ষে প্রবেশ করার পর আমাকে শুরুতেই বলেন ইন্ট্রুডিউস ইওরসেলফ ইন ব্রিফ ইন ইংলিশ।

তারপর বিষয়ভিত্তিক অনেক প্রশ্ন করেন। যেমন, এলিজাবেথান এইজের কয়েকজন বিখ্যাত কবি ও তাদের বিখ্যাত লেখা সম্পর্কে বলতে বলেন এবং তাদের লেখার বিষয়বিস্তু কি সংক্ষেপে বলতে বলেন। এরপর জিজ্ঞাসা করেন হোয়াজ ইজ স্যাটায়ার? প্রিপোজিসন ও কনজাঙসনের মধ্যে পার্থক্য দেখান। ‘প্যারাডাইজ লস্ট’ কার লেখা? এভাবে তারা ৫ থেকে ৭ মিনিট আমাকে বিভিন্ন প্রশ্ন করেন।
মুন্সিগঞ্জের লৌহগঞ্জ থেকে আসা ইডেন মহিলা কলেজের আরেক প্রার্থী সুমাইয়া শারমিন জানান, আমাকে ৪-৫ মিনিট মত ভাইভা বোর্ডে থাকতে হয়েছিল। প্রথমে আমার বাড়ি কোথায় এবং আমার পরিবার সম্পর্কে জানতে চান। তারপর ইংরেজি সাহিত্যের ইতিহাস খুবই সংক্ষেপে বলতে বলেন। এরপর ভার্ব ও বাংলা থেকে ইংরেজিতে কিছু অনুবাদ ধরেন। এরপর আমাকে আসতে বলেন।

রাঙামাটির লংগদু উপজেলা এসেছিলেন নুরুল ইসলাম। তিনি চট্টগ্রাম কলেজে পড়াশুনা করেছেন। ইংরেজি সাহিত্য নিয়ে পড়াশুনা করলেও ইংরেজির পাশাপাশি তাকে বাংলা সাহিত্য থেকেও প্রশ্ন করা হয়েছে। ইংরেজি সাহিত্যের প্রশ্নগুলো সব ইংরেজিতে এবং বাংলা সাহিত্য থেকে বাংলায় প্রশ্ন করা হয়।

তিনি জানিয়েছেন তার কাছে রোমান্টিক এইজ থেকে বিভিন্ন প্রশ্ন করা হয়। রোমান্টিক এইজের বৈশিষ্ট কী এবং এ সময়ের বিখ্যাত কয়েকজন সাহিত্যিকের নাম ও তাদের লেখা সম্পর্কেও জানতে চান তারা। ইংরেজি গ্রামারের টেনস(কাল) থেকে কয়েকটি প্রশ্ন করেন।
এছাড়া বাংলা সাহিত্যের লেখক আবু ইসহাকের ‘সূর্য দীঘল বাড়ি’ কী ধরনের লেখা ও তার মূলভাব কী এ প্রশ্নও করা হয় তাকে।
ময়মনসিংহের গফরগাঁও থেকে আসা প্রার্থী মনিরা সুলতানা রিমু বলেন, প্রথমে তারা আমার কাছ থেকে ইংরেজিতে নিজের পরিচয় সংক্ষেপে জানতে চান । আমি কেন পেশা হিসেবে শিক্ষকতাকে বেছে নিচ্ছি তা ব্যাখ্যা করতে বলেন।

আনন্দমোহন কলেজ থেকে পড়াশুনা শেষ করা আফিফা বেগম শিউলী জানান, বাকিদের ন্যায় নিজের সম্পর্কে আমাকে ইংরেজিতে বলতে বলেন। এছাড়া রোমান্টিক পিড়িয়ডের বিভিন্ন কবি, এসটি কলারিজ এবং ব্যাকরণের একটি বিষয় ‘সিনটেক্স’ থেকে প্রশ্ন করেন।
লক্ষীপুরের রামগতি উপজেলার নুরুজ্জামান একটু ভিন্ন অভিজ্ঞতার কথা দৈনিকশিক্ষাকে জানান। তিনি বলেন, প্রথমে নিজের সম্পর্কে জানতে চাইলে আমিন তা বলি। তারপর তারা জানতে চান আমি কবে পড়াশুনা শেষ করেছি এবং এখন কী করছি। আমি বললাম যে আমি একটি প্রাইভেট কলেজে শিক্ষকতা করি। তারা বলেন, একজন শিক্ষক হিসেবে আপনার দায়িত্ব কেমন হওয়া উচিত? এই পেশাকে আপনি কীভাবে মূল্যায়ন করেন? এই ধরনের প্রশ্ন করেই আমাকে আসতে বলেন।

বিষয়ভিত্তিক কোনো প্রশ্ন করা হয়েছে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমাকে এরকম কোনো প্রশ্নই করা হয়নি। আমার বর্তমান পেশা থেকেই সব জিজ্ঞেস করে আমাকে আসতে বলেন।

উপরোক্ত সাক্ষাৎকারগুলো পর্যালোচনা করলে দেখা যায় আজকের মৌখিক পরীক্ষায় অধিকাংশ প্রার্থীর ক্ষেত্রেই তাদের কাছে বিষয়ভিত্তিক জ্ঞানের উপরই গুরুত্ব দেয়া হয়েছে।

প্রতিটি বোর্ডে তিনজন বিশেষজ্ঞ ছিলেন বলে জানা যায়। বিশেষজ্ঞরা বি সি এস সাধারণ শিক্ষা ক্যাডারের কর্মকর্তা।


No comments:

Post a Comment

Copyright © ejobscircular24