Oops! It appears that you have disabled your Javascript. In order for you to see this page as it is meant to appear, we ask that you please re-enable your Javascript!.

তাঁদের কাছে আমার অনেক ঋণ আছে / অনিরুদ্ধ ইমাম | ejobscircular24

Government - Non Government job circular and news of Bangladesh

তাঁদের কাছে আমার অনেক ঋণ আছে / অনিরুদ্ধ ইমাম

ষষ্ঠ শ্রেণি থেকেই ‘বাঙলা দ্বিতীয় পত্র’ নামক একটা বিষয় ছিল আমাদের; কিন্তু ওটার প্রতি কোনোদিন কিঞ্চিৎ আগ্রহও বোধ করি নি। কারণ প্রাথমিক ও মাধ্যমিক স্তরে ইংরেজি ভাষাকে যে-গুরুত্ব দেওয়া হয়, বাঙলা ভাষার প্রতি তার ছিটেফোঁটাও দেওয়া হয় না। ফলে বাঙলা ব্যাকরণ অবহেলায় প’ড়ে থাকে
অনিরুদ্ধ ইমাম
নির্বিচারে। এ-রূপ অবস্থায় কারও মধ্যে ভাষাপ্রেম জেগে উঠবে, এমনটা ভাবাও বাতুলতা। আমার কথাই বলি। আমি বাঙলা ব্যাকরণের প্রতি আগ্রহী হয়েছিলাম এসএসসির অনেক পরে ( প্রায় দু’বছর তো হবে)। এক্ষেত্রে যিনি প্রভাবক হিসেবে কাজ করেছেন, তিনি হলেন অনুপম হক । সর্বপ্রথম, আমি তাঁর সংস্পর্শে এসেই বাঙলা ব্যাকরণ শেখার গুরুত্ব অনুধাবন করেছিলাম। যদিও সেটা তিনি নিজেই জানেন না। ভালবাসি ভাই আপনাকে। অতঃপর, সর্বপ্রথম বাঙলা ভাষার সৌন্দর্য আবিষ্কার করেছিলাম ড. হুমায়ুন আজাদ -এর লেখায়। যদিও এসএসসিতে থাকাকালীন থেকেই তাঁর লেখার সংস্পর্শে ছিলাম, কিন্তু বাঙলা ভাষার গুরুত্ব অনুধাবনের আগ পর্যন্ত এই সৌন্দর্য চোখেই পড়ে নি। মূলত, এরপর থেকেই বাঙলা ভাষার প্রেমে পড়া শুরু করি; এবং এজন্য তাঁর প্রতি যাবজ্জীবন কৃতজ্ঞ থাকব। শুধু ভাষাই নয়, আমার পুরো চিন্তাজগতে এই মানুষটির দান অনেক বেশি। আর যখন ভাবি, বাঙলা ভাষা সম্পর্কে কার কাছ থেকে সবচেয়ে বেশি শিখেছি? তখন ভেসে ওঠে একটিই নাম : ড. Mohammed Amin । অনেক ভালবাসি স্যার আপনাকে। খেয়াল করলাম, প্রিয় লেখকদের কথা ভাবার সময় মনের মধ্যে তাঁদের ছবি ভাসে না, বরং ভেসে ওঠে নাম। বোধহয় ছবির চেয়ে নামের সাথেই অধিক সাক্ষাৎ ঘটে ব’লে এমনটা হয়। আপনাদের কারও হয় নাকি এমন? সত্যি বলতে এই কয়জন মানুষের সংস্পর্শে না আসলে, হয়ত বুঝতেই পারতাম না বাঙলা ভাষা কত সুন্দর। আপনাদের কাছে আমি সত্যিই ঋণী। তবু একটাই আফসোস, এখনও আমার ভাষাজ্ঞান অনেকটাই ভাসা-ভাসা। তবে আমি আশাবাদী; নিশ্চয় একদিন পূর্ণাঙ্গ জ্ঞান অর্জনে সক্ষম হব। যারা বাঙালি হ’য়ে জন্মগ্রহণ করে, অথচ জীবনে কখনও বাঙলা ভাষার সৌন্দর্য উপলব্ধি করতে পারে না, তারা নিতান্তই হতভাগা। অবশ্য এতে তাদের কোনো দোষ নেই; কেননা মূল গলদটা আমাদের শিক্ষা ব্যবস্থায়। আর যারা বাঙালি হ’য়েও বাঙলা ভাষা ঘৃণা করে, তাদের তো কিছু বলাই অর্থহীন। কিন্তু রাগ দমিয়ে রাখা কারও কারও আবার স্বভাব-বিরুদ্ধ; যেমন : আব্দুল হাকিম।যে সবে বঙ্গেত জন্মি হিংসে বঙ্গবাণীসে সব কাহার জন্ম নির্ণয় ন জানি।


শুদ্ধ বানান চর্চা - শুবাচ

No comments:

Post a Comment

Copyright © ejobscircular24