Oops! It appears that you have disabled your Javascript. In order for you to see this page as it is meant to appear, we ask that you please re-enable your Javascript!.

এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের অর্থনীতি প্রথমপত্র | ejobscircular24

Government - Non Government job circular and news of Bangladesh

এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের অর্থনীতি প্রথমপত্র

এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের অর্থনীতি প্রথমপত্র



























সহযোগী অধ্যাপক, অর্থনীতি

বেগম রোকেয়া সরকারি কলেজ, রংপুর

মূলধন

অনুধাবনমূলক প্রশ্নোত্তর

প্রশ্ন : মূলধন কী? মূলধনের বৈশিষ্ট্যগুলো কী কী?

উত্তর : অর্থনীতির দৃষ্টিকোণ থেকে মূলধন হল সে সব দ্রব্যসামগ্রী যা মানুষের শ্রম দ্বারা তৈরি, যেগুলো বর্তমান ভোগে ব্যবহৃত না হয়ে, অতিরিক্ত উৎপাদনের জন্য ব্যবহৃত হয়।

উৎপাদনের অন্যতম উপাদান মূলধনের বৈশিষ্ট্যগুলো হল-

ক. মূলধন উৎপাদনের উৎপাদিত উপাদান।

খ. মূলধন সঞ্চয় হতে সৃষ্টি হয়।

গ. মূলধন অতীত শ্রমের ফল।

ঘ. মূলধন উৎপাদনশীল।

ঙ. মূলধনের উৎপাদন খরচ আছে।

চ. মূলধন অস্থায়ী।

ছ. মূলধন সমজাতীয় নয়।

জ. মূলধন অপেক্ষাকৃত গতিশীল।

ঝ. মূলধন ভবিষ্যৎ আয়ের উৎস।

ঞ. মূলধন উৎপাদনের নিষ্ক্রিয় উপাদান।

প্রশ : মূলধনের গতিশীলতা কী? মূলধনের গতিশীলতার নির্ণয়কগুলো কী কী?

উত্তর : মূলধন যখন একস্থান থেকে অন্য স্থানে, এক শিল্প থেকে অন্য শিল্পে, কিংবা এক দেশ থেকে অন্য দেশে স্থানান্তরিত হয়, তখন তাকে মূলধনের গতিশীলতা বলা হয়।

যেসব কারণে মূলধনের গতিশীলতা প্রভাবিত হয় তাদের মূলধনের গতিশীলতার নির্ধারক বলা হয়। সাধারণত মূলধনের গতিশীলতার কারণগুলোকে দু’ভাবে বিবেচনা করা হয়।

ক. অভ্যন্তরীণ উপাদান

খ. আন্তর্জাতিক উপাদান।

ক. অভ্যন্তরীণ উপাদান : একই দেশের ভেতরে মূলধন যখন এক স্থান থেকে অন্য স্থানে কিংবা এক শিল্প থেকে অন্য শিল্পে স্থানান্তরিত হয় তখন তাকে মূলধনের অভ্যন্তরীণ গতিশীলতা বলে। বিভিন্ন কারণে একটি দেশের মূলধনের স্থানান্তর হতে পারে। যেমন :

১. বাড়তি মুনাফাপ্রাপ্তির প্রত্যাশা।

২. সহজলভ্য শ্রমপ্রাপ্তির সুযোগ।

৩. অবকাঠামোগত সুবিধাদির উপস্থিতি।

৪. শিল্পের পর্যাপ্ত নিরাপত্তার সুযোগ।

৫. নতুন নতুন নগরায়ন/শহরায়ন।

৬. উপকরণপ্রাপ্তির সহজলভ্যতা।

খ. আন্তর্জাতিক উপাদান : দেশের সীমানা অতিক্রম করে মূলধন যখন অন্য দেশে স্থানান্তরিত হয়, তখন তাকে মূলধনের আন্তর্জাতিক গতিশীলতা বলা হয়। যেসব বিষয় মূলধনের আন্তর্জাতিক গতিশীলতায় ভূমিকা রাখে, সেগুলো হল-

১. সামাজিক অবকাঠামো।

২. সামাজিক নিরাপত্তা।

৩. গতিশীল শিল্পনীতি।

৪. বিনিয়োগ নিরাপত্তা।

৫. শুল্ক কাঠামো।

৬. ওয়ানস্টপ সার্ভিস।

৭. প্রশাসনিক সহযোগিতা।

৮. রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা।

প্রশ্ন : অনুন্নত/উন্নয়নশীল দেশসমূহে মূলধন গঠনের ক্ষেত্রে সমস্যাবলী কী কী?

অনুন্নত/উন্নয়নশীল দেশসমূহের অন্যতম সমস্যা হল মূলধনের স্বল্পতা। এসব দেশের জনগণের মাথাপিছু আয় কম। তাই তাদের সঞ্চয় কম। আর সঞ্চয় কম বিধায় মূলধন গঠনের হারও কম। জাতীয় আয়ের শতকরা পাঁচ ভাগেরও কম হয়ে থাকে জাতীয় সঞ্চয়। অনুন্নত/উন্নয়নশীল দেশসমূহে মূলধন গঠনের ক্ষেত্রে বিদ্যমান সমস্যাগুলো হল-

১. জনগণের মাথাপিছু আয় কম।

২. জনগণের দূরদৃষ্টির অভাব।

৩. সামাজিক ও ধর্মীয় রীতিনীতি।

৪. জননিরাপত্তার অভাব।

৫. রাজনৈতিক অস্থিতিশীলতা।

৬. ব্যাপক কর ফাঁকির প্রবণতা।

৭. সঞ্চয় সংগ্রহের পদ্ধতিগত ত্র“টি।

৮. দক্ষ উদ্যোক্তার অভাব।

৯. সুশাসনের অভাব।

১০. প্রশানিক দুর্নীতি ও অদক্ষতা
e-Schoolbd সবার জন্য শিক্ষা

No comments:

Post a Comment

Copyright © ejobscircular24