Oops! It appears that you have disabled your Javascript. In order for you to see this page as it is meant to appear, we ask that you please re-enable your Javascript!.

প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষার প্রস্তুতি প্রাথমিক বিজ্ঞান | ejobscircular24

Government - Non Government job circular and news of Bangladesh

প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষার প্রস্তুতি প্রাথমিক বিজ্ঞান

প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষার প্রস্তুতি

প্রাথমিক বিজ্ঞান

রাশিদা ইয়াসমিন
সিনিয়র শিক্ষক, ন্যাশনাল আইডিয়াল স্কুল খিলগাঁও, ঢাকা

কুইজ প্রস্তুতি

বইয়ের ভেতরের প্রতিটি অধ্যায়ের কিছু গুরুত্বপূর্ণ লাইন সাজেশন হিসেবে দেয়া হল

অধ্যায়-৫ : পদার্থ ও শক্তি

১. সামর্থ্যই হল শক্তি। আমরা সব কাজেই শক্তি ব্যবহার করি। শক্তি কোনো কিছুর রূপ বা অবস্থানের পরিবর্তন করতে পারে।

২. বায়ুপ্রবাহ একটি যান্ত্রিক শক্তি। কারণ এটি বায়ুকল চালাতে পারে।

৩. চলমান গাড়ির শক্তিও যান্ত্রিক শক্তি।

৪. শব্দ শক্তি হল এমন একটি শক্তি যা আমাদের শুনতে সাহায্য করে।

৫. তাপ এক প্রকার শক্তি। খাবার, জ্বালানি তেল, কয়লা ইত্যাদি রাসায়নিক শক্তি সঞ্চিত থাকে। এসব শক্তির মূল উৎসই সূর্য।

৭. শক্তি এক রূপ থেকে অন্য রূপে পরিবর্তিত হতে পারে। শক্তির রূপের এ পরিবর্তনই হল শক্তির রূপান্তর।

৮. সৌরশক্তিকে আমরা প্রত্যক্ষভাবে আলো ও তাপ হিসেবেই পাই। যখন উদ্ভিদ খাদ্য তৈরি করে তখন সৌরশক্তি রাসায়নিক শক্তিতে রূপন্তরিত হয়।

৯. প্রাণী যখন খাদ্য হিসেবে এ উদ্ভিদ গ্রহণ করে তখন এ রাসায়নিক শক্তি তাপ এবং যান্ত্রিক শক্তিতে রূপান্তরিত হয়।

১০. সৌর প্যানেল সৌরশক্তিকে বিদ্যুৎ শক্তিতে রূপান্তরিত করে।

১১. উচ্চ তাপমাত্রার স্থান থেকে নিু তাপমাত্রার স্থানে তাপের প্রবাহই হল তাপ সঞ্চালন।

১২. তাপ পরিবহন, পরিচালন এবং বিকিরণ এই তিন উপায়ে সঞ্চারিত হয়।

১৩. কঠিন পদার্থের মধ্য দিয়ে তাপ পরিবহন পদ্ধতিতে সঞ্চালিত হয়।

১৪. তরল এবং বায়ুবীয় পদার্থের মধ্য দিয়ে তাপ পরিচলন পদ্ধতিতে সঞ্চালিত হয়।

১৫. যে প্রক্রিয়ায় তাপ শক্তি কোনো মাধ্যম ছাড়াই উৎস থেকে চারদিকে ছড়িয়ে পড়ে তাই বিকিরণ।

১৬. কঠিন পদার্থের মধ্য দিয়ে পরিবহন এবং তরল ও বায়ুবীয় পদার্থের মধ্য দিয়ে পরিচলন প্রক্রিয়ায় তাপ সঞ্চালিত হয়। কিন্তু বিকিরণ প্রক্রিয়ায় তাপ কঠিন, তরল এবং বায়বীয় মাধ্যম ছাড়া সঞ্চালিত হয়।

১৭. পৃথিবী থেকে সূর্য লাখ লাখ কিলোমিটার দূরে হলেও আমরা সূর্যের তাপ পাই।

১৮. আগুন কিংবা বৈদ্যুতিক বাতি থেকেও এ প্রক্রিয়ায় তাপ পাওয়া যায়।

১৯. আলো শক্তির এমন একটি রূপ যা আমাদের দেখতে সাহায্য করে।

২০. আলো বিকিরণ পদ্ধতিতে সঞ্চালিত হয়।

২১. কঠিন, তরল এবং বিকিরণ পদ্ধতিতে সঞ্চালিত হয়। কঠিন, তরল এবং বায়বীয় মাধ্যম ছাড়া আলো সঞ্চালিত হতে পারে।

২২. আলোর সঞ্চালনের জন্য কোনো মাধ্যমের প্রয়োজন হয় না।

২৩. চাঁদ, তারা এবং সূর্য থেকে আলো বিকিরণ প্রক্রিয়াতেই পৃথিবীতে আসে।

২৪. তেল, কয়লা এবং প্রাকৃতিক গ্যাসের মতো অনবায়নযোগ্য শক্তির উৎসবের ওপরই আমরা বেশি নির্ভরশীল।

২৫. শক্তির অপচয় পরিবেশের জন্য ক্ষতিকর এবং এর ফলে পরিবেশ দূষিত হয়।

২৬. শক্তির যথাযথ ব্যবহার করে আমরা শক্তির অপচয় রোধ করতে পারি এবং পরিবেশ দূরষণ কমাতে পারি।

২৭. যার ওজন আছে এবং জায়গা দখল করে তাই পদার্থ।

২৮. আমাদের চারপাশে সবকিছুই পদার্থ।

২৯. পদার্থের এ সূক্ষ্ম কণাই হল পরমাণু। দুই বা ততোধিক পরমাণু একত্রিত হয়ে অণু গঠন করে। পদার্থ হল অসংখ্য অণুর সমষ্টি।

৩০. পদার্থ কঠিন, তরল না বায়ুবীয় অবস্থায় থাকবে তা নির্ভর করে পদার্থের অণুগুলো কীভাবে সাজানো, এদের মধ্যে বন্ধন কেমন, তার উপায়।

৩১. পানি একটি পদার্থ। পানির তিনটি অবস্থা রয়েছে। যেমন- বরফ, পানি এবং জলীয় বাষ্প।

৩২. অণুগুলো সব সময়ই গতিশীল। কঠিন পদার্থ যেমন- বরফে পানির অণুগুলো খুব কাছাকাছি থাকে এবং তাদের বন্ধন অনেক বেশি দৃঢ়।

৩৩. বায়বীয় পদার্থের অণুগুলোর মাঝে অনেক বেশি খালি জায়গা থাকে। ফলে অণুগুলো দ্রুতগতিতে সর্বক্ষণ স্বাধীনভাবে চলাচল করতে পারে।

e-Schoolbd সবার জন্য শিক্ষা

No comments:

Post a Comment

Copyright © ejobscircular24